ভালো ছাত্র হওয়ার উপায়

ছাত্র হিসাবে ভালো হতে চায় না এমন কোনো ছাত্র পাওয়া মুশকিল। ভাল ছাত্র হওয়ার উপায় সম্পর্কে জানতে চাই অনেকে। শিক্ষাজীবন হচ্ছে নিজেকে গড়ার সবচেয়ে উত্তম সময়। আমরা অনেকে চাইলে ও ভাল করতে পারিনা। কারণ আমাদের মধ্যে আত্মবিশ্বাসের অনেক অভাব। দেখা যায় যে আমরা আমাদের বদ অভ্যাসগুলো ত্যাগ করতে পারিনা। যার জন্য আমরা পড়াশোনায় মনোযোগী হতে পারিনা। ফলে বার বার আমাদের পিছিয়ে পড়তে হয়। মন থেকে যতদিন লেখাপড়া না করবেন ততদিন যতই লেখাপড়া করেন না কেন কোনো কাজে আসবে না।

তবে আজকে চলুন জেনে নেওয়া যাক কি করে একজন ভাল ছাত্র হওয়া যায়-

ভালো ব্যবহার
একজন ছাত্র শুধুমাত্র ভালো ছাত্র হলেই হবে না। অবশ্যই তার ব্যবহার ভাল থাকতে হবে। সবার সাথে সুন্দর ভাবে কথা-বার্তা বলতে হবে, আচার-আচরণে সবাই যাতে করে খুশি হয় এমন ভাবে নিজেকে গড়ে তুলতে হবে। সবার সাথে বন্ধুসুলভ আচরণ করতে হবে। কখনো আপনার মধ্যে অহংকার বা দাম্ভিকতা প্রকাশ না পায় সেই দিকে একটি ভাল ছাত্রকে খেয়াল রাখতে হবে।

জানার আগ্রহ
জানার কোনো বিকল্প নেই এবং জানার কোনো বয়সও নেই। একজন ভালো ছাত্রের প্রতিটি বিষয়ে জানার আগ্রহ থাকতে হবে। প্রতিনিয়ত নতুন নতুন বিষয়ে জানা একটি ভালো ছাত্রের অন্যতম একটি ‍গুণ। একজন ভালো ছাত্র একাডেমিক পড়ার বাহিরেও অতিরিক্ত কিছু শিখতে হবে।

নিয়মানুবর্তিতা
ভালো ছাত্রের অন্যতম একটি গুণ হলো রুটিন অনুসারে কাজ করা। সময়ের কাজ সময়ে করাই হলো তার কাজ। সে কখনো তার কাজ আগামীকালের জন্য রেখে দেয় না। প্রতিদিনের পড়া শেষ করে সে ছাত্র শ্রেণীকক্ষে উপস্থিত থাকতে হবে।

সৃজনশীলতা
একজন ভালো ছাত্র কখনোই শুধু একাডেমিক শিক্ষা নিয়ে বসে থাকে না। পড়ালেখার পাশাপাশি সে নতুন কিছু সৃষ্টি করার চেষ্টা করে। নিজের সৃজনশীলতাকে কাজে লাগিয়ে একজন শিক্ষার্থী সমাজ এবং দেশের উন্নতির কাজে অনেক অবদান রাখতে পারে।

কঠোর পরিশ্রমী
কথায় আছে, “পরিশ্রম হচ্ছে সাফল্যের চাবিকাঠি”। তুমি পরিশ্রম ছাড়া কোনো কাজে উন্নতি লাভ করতে পারবে না।

অধ্যাবসায়
শিক্ষাজীবনে অধ্যাবসায়ের গুরুত্ব অপরিসীম। মানুষের জীবনে চলার পথে অনেক বাধা আসবে। অধ্যাবসায়ের মাধ্যমে সেগুলোকে অতিক্রম করে সামনের দিকে নিয়ে যেতে হবে। অধ্যাবসায় অনেক অসাধ্যকে সাধন করতে পারে।

সময়ের গুরুত্ব
ছাত্রজীবনের সময়ের গুরুত্ব সবচেয়ে বেশি। তাই ছাত্রজীবন থেকেই সময়ের মূল্যায়ন করা উচিত। ভালো ছাত্র হলে সব সময় সময়ের প্রতি সচেতন থাকতে হবে। সময় ব্যয় করে কখনো ভালো শিক্ষার্থী হওয়া যায় না। তাই সময়ের সঠিক ব্যবহার করতে হবে।

রুটিন অনুসারে পড়াশুনা
একজন ভালো ছাত্র অবশ্যই রুটিন অনুসারে লেখাপড়া করতে হবে। কখন কী পড়বেন, কখন লিখবেন, কখন রিভিশন দিবেন তার রুটিন একান্ত প্রয়োজন। রুটিন অনুসারে না পড়লে কখনো পড়াশুনায় ভাল করা যাবে না।

ধৈর্য্যশীলতা
একজন ভালো শিক্ষার্থীর জন্য ধৈর্য্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ। কখনো ধৈর্য্য হারালে যত ভালো ছাত্রই হোক না কেন সে তার ভালো লেখাপড়া ধরে রাখতে পারবেন না।

আত্মবিশ্বাস
যে কোনো কাজে সফল হওয়ার জন্য নিজের ইচ্ছাশক্তি ও নিজের উপর আস্থা থাকতে হবে। ভালো শিক্ষার্থীর একটি বড় গুণ হলো আত্মবিশ্বাস। আপনার আত্মবিশ্বাস না থাকলে আপনি কোনো কাজেই ভাল করতে পারবেন না।

পড়া মনে রাখার কৌশল সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here