পাহাড় ভ্রমণের সর্তকতা

শীতকাল মানেই ভ্রমণ পিপাসু মানুষের জন্য খুশির সময়। পাহাড় ভ্রমণের সর্তকতা সম্পর্কে ভ্রমণ পিপাসুদের তা জানা দরকার। শীত শুরু হওয়ার পর থেকে ভ্রমণ পিপাসু মানুষ গুলো রাঙ্গামাটি এবং বান্দরবান ভ্রমণে মেতে ওঠেছেন। সুযোগ পেলেই তারা ঢুঁ মারতে যাচ্ছেন অনিন্দ্য সুন্দর সেই স্থানে। তাছাড়া নীলগিরি, নীলাচল, সীতাকুন্ডুর চন্দ্রনাথ তো রয়েছে। শীতকালে সব পাহাড়ি এলাকায় ভ্রমণপ্রেমীদের অনেক ভিড়।

সত্যি বলতে পাহাড়ের সৌন্দয্য কখনো ব্যাখ্যা করা যায় না। পাহাড়ের চুড়ায় দাড়িয়ে মেঘ হাতে নেওয়া সৌভাগ্য অনেক মানুষের হয় না। আসুন তাহলে শীতে ভ্রমণের উপকারীতা সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক –

ভ্রমণের সময় অবশ্যই মাথায় রাখবেন আপনাকে পাতলা কাপড় নিতে হবে। ভারী কাপড় নিলে আপনার ব্যাগ ওজন হয়ে যাবে। যদি সম্ভব হয় তাহলে একটা শীতের কাপড় ব্যবহার করুন। ঠান্ডা যদি অনেক বেশি হয় তাহলে মনে রাখবেন, পাহাড়ে উঠার সময় আপনার এমনিতেই গরম লাগবে।

পাহাড়ে ঘুরতে যাওয়ার জন্য অবশ্যই ব্যাগ-প্যাক করুন। প্রয়োজন ছাড়া কোনো জিনিস সাথে নিবেন না। অযথা বাড়তি জিনিস বহন করলে ব্যাগ ভারি হবে এবং পাহাড়ে উঠতে আপনার অনেক কষ্ট হবে।

পাহাড়ে ভ্রমণের সময় আপনার জুতার দিকে নজর দিন। স্লিপ করবে না এমন জুতা ব্যবহার করুন। যথা সম্ভব হলে কেডস ব্যবহার করুন।

শীতকালে রোদ আমাদের অনেক ভাল লাগে কিন্তু তা শরীরের জন্য বেশ ক্ষতিকারক। শীতকালে আমাদের শরীরের সানট্যান দেখা যায়। তাই শীতে আমাদের সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে হয়।

ভ্রমণের সময় অবশ্যই প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র সাথে নিতে কখনো ভুলবেন না। যেমন- সাবান, শ্যাম্পু, ব্রাশ, চিরুনী, ভ্যাসলিন, টুথপেষ্ট, ময়েশ্চারাইজার ইত্যাদি।

মনে করে সাথে গামছা নিবেন। কারণ গামছা পাতলা বলে শুকিয়ে যায় অনেক তাড়াতাড়ি।

যখন ভ্রমণ করবেন অবশ্যই সাথে টর্চ, পাওয়ার ব্যাংক, মোবাইল চার্জার ইত্যাদি সাথে রাখুন।

সম্ভব হলে সাথে ‍শুকনো খাবার রাখুন, পানির বোতল রাখুন। হালকা খাবার সাথে রাখা আর পানি রাখা অনেক বেশি জরুরী ভ্রমণের জন্য।

ভ্রমণের সময় আপনার প্রয়োজনীয় ওষুধগুলো সাথে নিন। সাধারণ ওষুধ গুলো সাথে রাখা অনেক দরকার।

পাহাড়ি এলাকায় বেশিরভাগ সময় নেটওর্য়াক পাওয়া যায় না। তাই যথাসম্ভব একাধিক সিম ব্যবহার করুন।

যদি কখনো পরিবার নিয়ে পাহাড়ে ঘুরতে যান তাহলে বয়স্কদের বেলায় বাড়তি যত্ন নিতে হবে।

আপনার শারীরিক কোনো সমস্যা হলে পাহাড়ে যাওয়া আগে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

মার্কেটিং করার কৌশল সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here